November 30, 2023

পুজোয় দেশের বাইরে ঘুরতে যেতে চাইছেন, জেনে নিন কম খরচে বিদেশে বেড়ানোর কিছু জায়গা

travel-budget-international-destination

‘চলো যাই চলে যাই… দূর বহুদূর…’ গায়কের সঙ্গে এই গানে মনে মনে দুর দুরান্তে হারিয়ে যাননি এমন মানুষ কিন্তু মেলা ভার! বাঙালি এবং ভ্রমণ, ঠিক যেন একে অপরের পরিপূরক। আর তার সঙ্গে রয়েছে বাঙালির বারো মাসে তেরো পার্বণ। এই সংস্কৃতি বাঙালিকে যেন ভ্রমণের প্রতি আরও উসকে দেয়। অন্যান্য ভ্রমণপ্রেমীদের মত শুধু দেশের মাটিই নয়, একজন ভ্রমণপ্রেমী বাঙালিও ছুঁয়ে দেখতে চান বিদেশের মাটিকে। কিন্তু অনেক সময় হয় কী, বিদেশ যাত্রার একটি বড় সমস্যা হয় দাঁড়ায় খরচা পাতি। কিন্তু সেই নিয়েও আর চিন্তা থাকবে না, যদি আপনারা দেখেন আজকের এই ভিডিওটি। আজকের ভিডিওয় থাকল এমন কিছু বিদেশ সফর, যেখানে গেলে খরচ, একেবারেই বাধ সাধবে না। চলুন, আর দেরি না করে শুরু করা যাক।

° নেপাল –

প্রকৃতির এক অপরূপ সৌন্দর্যের ধারক ভারতের এই প্রতিবেশী দেশটি। অনেকেই আছেন, যাঁরা পাহাড় অন্ত প্রাণ। দার্জিলিং বা সিকিম গিয়েও সূর্যস্নাত কাঞ্চনজঙ্ঘার অনিন্দ্যকান্তি রূপে মন ভরেনি। তাই আরও একবার সাক্ষী হতে ইচ্ছে হয় সেই ঐশ্বরিক দৃশ্যের। নেপালে পাওয়া যাবে সেই সুযোগ। কাঞ্চনজঙ্ঘার রূপ মন ভরে উপভোগ করার সঙ্গে, কম খরচে কীভাবে নেপাল ভ্রমণ করা যায়, জেনে নিন।
কলকাতা থেকে আকাশ পথে নেপালের রাজধানী কাঠমাণ্ডুর ত্রিভুবন এয়ারপোর্টে নেমে শুরু হতে পারে আপনার যাত্রা। অথবা রেলপথে শিলিগুড়ি পর্যন্ত গিয়ে, মাত্র তিন ঘন্টার সফর করে পৌঁছতে পারেন আপনার গন্তব্যে।
স্কাই স্ক্যানারের সাহায্য নিলে আকাশপথে ভাড়া পাঁচ থেকে ছয় হাজারের মধ্যে সংগঠিত হতে পারে।
নেপাল যাওয়ার আদর্শ সময় অক্টোবর নভেম্বর মাস। সেই সময় আবহাওয়া আরামদায়ক থাকলেও ডিসেম্বর এবং জানুয়ারির দিকে বরফ থাকে। নেপাল ভ্রমণ আরও সস্তায় করতে চাইলে মার্চ এপ্রিলের মাঝামাঝি যেতে পারেন। অফ সিজন হওয়ার দরুন গাড়ি ভাড়া, হোটেল ভাড়া, কেনাকাটি অন্যান্য সময়ের চেয়ে সস্তায় সম্পন্ন হয়।

বন্ধুরা, আপনাদের নিশ্চয়ই এখানে অনেকেই ফেলুদা ভক্ত থাকবেন। তাই নেপাল ভ্রমণের শুরু করুন যথারীতি কাঠমান্ডু দিয়ে। এখানকার পশুপতি নাথের মন্দির নিঃসন্দেহে আপনাদের জন্য বিশেষ আকর্ষণের কেন্দ্র হয়ে উঠবে। এছাড়াও বোধি স্তূপ, হনুমান মন্দির, নারায়ণহিতি প্যালেস, কৈশর মহল, নীলকন্ঠ মন্দির বিশেষ উল্লেখযোগ্য স্থান। নেপাল যাবেন অথচ গৌতম বুদ্ধের জন্মস্থানে পরিভ্রমণ করবেন না, তা হয় না। লুম্বিনী তে গিয়ে সাক্ষী হবেন এক অসাধারণ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের সঙ্গে ইতিহাসের। এখানে রয়েছে বুদ্ধদেবের মা মায়া দেবীর মন্দির।

এছাড়া লাঙতাং জাতীয় অভয়ারণ্য, অন্নপূর্ণা সার্কিট, ভক্তপুরের মত ট্যুরিস্ট স্পটগুলির সৌন্দর্যও উপভোগ করতে পারেন।
সবচেয়ে বড় কথা, একটি বিশেষ ফ্লাইটের সাহায্যে আপনি সাইট সিয়িং হিসেবে আকাশপথে কাঞ্চনজঙ্ঘার বিস্তৃতি সচক্ষে উপভোগ করতে পারবেন।

নেপালে রাত্রিবাসের জন্য এমন হোটেল পাবেন যেখানে খরচ ৮০০- ১০০০ এর মধ্যেও সম্ভব। এছাড়া থালি সিস্টেমও এখানে বেশ জলের দরে।

 

কম খরচে বিদেশ ভ্রমণ – Cheapest Foreign Trip From India

 

° ভুটান –

স্কুল এক্সকারশন হোক, বা অফিস ট্রিপ! অথবা হানিমুন, বিদেশি ছোঁয়া পেতে ভারতীয়দের অন্যতম ড্রিম ডেস্টিনেশন ভুটান। বিদেশি তকমা থাকলেও, ভুটান কিন্তু ভারতীয়দের একেবারে যেন বাড়ির পাশেই! তাই কম খরচে আপনি খুব সহজেই এই বিদেশ সফরের অংশ হয়ে উঠতে পারবেন। সবচেয়ে বড় কথা, আপনি যদি ভারতীয় মুদ্রার বদলে ডলারে ভুটানে থাকার ব্যবস্থা করেন, তাহলে হোটেলগুলিতে অনেক কম খরচে আপনার থাকার বন্দোবস্ত হয়ে যাবে।
শিলিগুড়ি থেকে প্রিপেড ট্যাক্সিতে আপনি ভুটানের দিকে যাত্রা করতে পারবেন। এই সফরে আপনার খরচ হতে পারে দুই থেকে তিন হাজার মত। তবে গ্রুপের সঙ্গে থাকলে ভাগাভাগি করে খরচ করলে অনেক কমে হয়ে যাবে।

ভুটানের রাজধানী থিম্পু গেলে আপনার মনে হবে, কোনও নিপুণ চিত্রকরের তুলির টানে সেজে উঠেছে হিমালয়ের বুকে এই শহরটি। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ৭,৩৭৫ ফুট থেকে ৮,৬৮৮ ফুট উচ্চতায় অবস্থিত থিম্পু। পাহাড়ি আঁকা বাঁকা পথ, এবং খেলনা বাড়ির মত রঙ বেরঙের আবাসস্থলগুলি পর্যটকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে। থিম্পুর মধ্যে দর্শনীয় স্থানগুলি হল, তাসিচ ডিজং, পার্লামেন্ট হাউজ, ক্লক টাওয়ার, ন্যাশনাল লাইব্রেরী, বুদ্ধ দর্দেনমা স্ট্যাচু, ইত্যাদি। সিটি ভিউ পয়েন্টে গিয়ে আপনি পাখির চোখ থেকে সমগ্র থিম্পুকে পরিদর্শন করতে পারবেন।
ভুটানের অন্যতম প্রাণকেন্দ্র হল আরও একটি স্বপ্নের মত সুন্দর শহর, পারো। এখানে দেখার মত রিনপুং জং, টা জং, ড্রুকগিয়াল জং, টাইগার্স মনাস্ট্রি প্রভৃতির সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারবেন।

এছাড়া বিদেশ সফর করবেন, অথচ আত্মীয় স্বজনদের জন্য কোনও চিহ্ন নিয়ে যাবেন না, তা হয় না। তার জন্য রয়েছে ভুটানের প্রবেশদ্বার ফুন্টসলিং। ভুটান – ভারতের সীমান্তে জয়গাও শহরের পাশে অবস্থিত এই শহর, অন্যতম ব্যাবসা বাণিজ্যের কেন্দ্র হয়ে গড়ে উঠেছে। শুধু ভুটানিরাই নন, শিলিগুড়ি তথা ভারতের বাসিন্দারাও এইখানে আসেন ব্যবসার সূত্রে। সুতরাং দেশীয় এবং বিদেশিয় জিনিসের দারুন সমাহার পাবেন এই অঞ্চলে।

ভুটানের একদিনের রাত্রিবাসের জন্য আপনার দের থেকে দু হাজারের মত খরচ হতে পারে।

° শ্রীলঙ্কা –

বিশ্বের অন্যতম এক ইতিহাস প্রসিদ্ধ দেশ, ভারতেরই আর এক প্রতিবেশী রাষ্ট্র শ্রীলঙ্কা। সমুদ্র বেষ্টিত এই প্রাচীন ঐতিহ্য সমৃদ্ধ দ্বীপ রাষ্ট্রটি কম খরচে বিদেশ সফরের জন্য অন্যতম একটি উপযুক্ত জায়গা।
স্কাই স্ক্যানারের সাহায্যে যেতে বিমান খরচ হতে পারে পাঁচ হাজার মত।

শ্রীলঙ্কার দর্শনীয় স্থানগুলির মধ্যে বেছে নিতে পারেন সমুদ্রের মাঝে একটুকরো সবুজ বনানী দিয়ে আবর্তিত বেন্টোটা শহর। প্রাচীন দুর্গ এবং বৌদ্ধ মন্দির এই শহরের অন্যতম প্রাণকেন্দ্র। এখানে সার্ফিংসহ বিভিন্ন বিনোদনের সুব্যবস্থা রয়েছে।

এছাড়া আপনি যদি প্রকৃতির সঙ্গে চা প্রেমী হন, তবে নুওয়ারা ইলিয়া জায়গাটি আপনাকে আকর্ষণ করবেই।

শ্রীলঙ্কার বাণিজ্যিক রাজধানী কলম্বো পরিদর্শন না করলে, আপনার শ্রীলঙ্কা সফর অসম্পূর্ণ থেকে যাবে।

সারি সারি নারকেল গাছ দিয়ে ঘেরা মনোরম সমুদ্র সৈকত মিরিসা, শ্রীলঙ্কাবাসীর কাছে ভূস্বর্গ! এই জায়গার নৈসর্গিক আবহ উপভোগ না করলে কিন্তু বড় মিস!

শ্রীলঙ্কায় রাত্রিবাসের জন্য ডের থেকে দু হাজারের মধ্যে হোটেল পেয়ে যাবেন।

° বাংলাদেশ –

সাধ্যের মধ্যে বিদেশ যাত্রা নিয়ে কথা হচ্ছে। অথচ এতকিছুর মধ্যে আপনারা কিন্তু অনেকেই উৎসুক হয়ে আছেন, আপনাদের সবচেয়ে কাছের প্রতিবেশী দেশটিকে নিয়ে! বাংলাদেশ! ভুটানের মত বাংলাদেশের গায়েও যতই বিদেশি প্রলেপ গেঁথে দেওয়া হোক না কেন, বাঙালির কাছে বাংলাদেশ হল আবেগের।
বাংলাদেশে ভ্রমণ করতেও স্কাই স্ক্যানারের সাহায্য নিলে বিমান খরচ চার হাজারের কিছু অধিক মূল্যে সম্পাদিত হবে।

বাংলাদেশের দর্শনীয় স্থানসমূহের মধ্যে প্রথমেই বলতে হয় সবুজে ঘেরা পাহাড়ি উপত্যকায় বিস্তৃত সমুদ্রসৈকত কক্স বাজারের কথা। মহেশখালী, কুতুবদিয়া, সোনাদিয়া, শাহপরী, প্রবাল দ্বীপ সেন্ট মার্টিন প্রভৃতি পর্যটন কেন্দ্র কক্স বাজারকে পরিপূর্ন করে তুলেছে।

বাংলাদেশের মনোরম সবুজ প্রকৃতির সঙ্গে, যদি আপনাদের সফরসঙ্গী হয়ে ওঠে এক কাপ, কি দু কাপ চা, কেমন হবে বলুন তো? বাংলাদেশের সিলেটে সাক্ষী হবেন এমনই এক অভিজ্ঞতার। চা পান করতে করতেই সারি সারি চা বাগানের মনোমুগ্ধকর পরিবেশের আমেজ নিতে পারবেন।

সুন্দরবন – বাংলাদেশ যাবেন, অথচ সুন্দরবন ভ্রমণ করবেন না, এ একেবারেই অভাবনীয়! নানারকম জীববৈচিত্রের সমাহার রয়েছে এই অরণ্যে। ভারত এবং বাংলাদেশের এই এই ঐতিহ্যের সাক্ষী হওয়া কিন্তু সত্যিই গর্বের।

এছাড়াও নিঝুম দ্বীপ, রাঙামাটি, চিম্বুক পাহাড়, শুভলং ঝর্না, বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক, সাজেক প্রভৃতি দর্শনীয় স্থান ঘুরে দেখতে পারেন।

বাংলাদেশে রাত্রিবাসের জন্য খরচ হতে পারে এক হাজার টাকা মত।

বন্ধুরা, কম খরচে বিদেশ সফরের এই পর্ব আপনাদের কেমন লাগল জানাতে ভুলবেন না। এর মধ্যে কোন জায়গাটি আপনি ইতিমধ্যে গেছেন, অথবা কোন জায়গাটি যাবেন, জানাবেন আমাদের কমেন্ট করে। আজ এই পর্যন্তই। দেখা হবে আবার নতুন সফরে।

Facebook Comments Box
BengaliEnglishHindi