May 16, 2024

কলকাতার কাছাকাছি কিছু Resorts- Some Resorts Near Kolkata

বিলাসিতা যদি আপনাদের ভ্রমনের ধারণা হয়, তাহলে এক-দু দিনের ছুটিতে নিজের পরিবার, বন্ধু বা প্রিয়জনদের সাথে ঘুরে আসুন কলকাতার কাছাকাছি এই রিসর্ট গুলিতে।

 

১। দ্বারহাটা মনদ্বারিকা ইকো রিসর্টঃ

জনসমক্ষে টায়ার হাউস হিসেবেই বেশি পরিচিত। শুধুমাত্র টায়ার ও মাটি দিয়ে তৈরি এক স্বপ্নপুরী। কলকাতা থেকে মাত্র 55 কিলোমিটার দূরে অবস্থিত দারহাটা গ্রাম, সবুজে ঘেরা, জলাশয় ভরপুর এক সুন্দর গ্রাম। আর তারই সাথে সামঞ্জস্য রেখে একেবারে বাংলার গ্রাম্য ধাঁচে তৈরি এই ইকো রিসর্ট।

মাটির ঘরের দেওয়ালের সুন্দর আঁকিবুঁকি হোক বা ঝুড়ি দিয়ে তৈরি আলোকসজ্জা, সামান্য জিনিস দিয়ে অসাধারণ শিল্পকলা বোধহয় একেই বলে। থাকার ঘরের সাথে সাথে খাবার জায়গা ও বসার জায়গাতেও রয়েছে সেই গ্রামবাংলার স্বাদ। মাটির থালায় কলা পাতার ওপর বাঙালি পদের সাথে উপভোগ করতে পারবেন গ্রামের খেত, ফুলের বাগানের সুন্দর দৃশ্য। সমস্ত আধুনিক সুযোগ-সুবিধার সাথে রাত্রিবাসের সুব্যবস্থা রয়েছে।

এক দিনে ঘুরে আসতে চাইলে তারও ব্যবস্থা রয়েছে। রিসর্ট -এর সাথে আশেপাশের গ্রাম ঘুরে দেখতেও দারুন লাগবে। ঘুরে আসতে পারেন তিনশো বছরের পুরনো রাজরাজেশ্বর মন্দির, দ্বারিকা চন্ডীর মন্দির থেকে। অনেক দূরে রয়েছে দামোদর নদীর তীর ও আটপুর। 

রুমের ভাড়া এবং খাবারের খরচঃ 

দুজনে রুমের ভাড়া ২০০০ টাকা ও চারজনের রুমের ভাড়া ৩০০০ টাকা

খাবারের খরচ আলাদা সারাদিনের খাবারের খরচ মোটামুটি ৮৫০ টাকা তবে পদবিশেষে দামের পরিবর্তন হতে পারে।

কিভাবে যাবেনঃ

হাওড়া থেকে তারকেশ্বর লোকাল ধরে নামতে হবে হরিপাল স্টেশনে। সেখান থেকে অটো করেই পৌঁছে যাবেন এই রিসর্ট-এ।

ফোন নংঃ ৯০৫১১৬০৮৭০ / ৯০৩৮৬৩৩২১১

 

২। ইবিজা দ্য ফার্ন রিসর্টঃ

আপনি যদি সুসজ্জিত luxurious  একটি রিসর্টের খোঁজে থাকেন, তাহলে এই রিসর্ট হতে পারে আপনার জন্য একেবারে ideal। আধুনিকতার সাথে প্রকৃতির এক অভূতপূর্ব মেলবন্ধন ঘটানো হয়েছে। luxurious রুমের ব্যালকনিতে বসে যখন সবুজে ঘেরা মাঠ ও জলাশয় দেখতে পাবেন মন ভরে যাবে।এখানে separate villas ও রয়েছে। তাই ফ্যামিলি বা ফ্রেন্ডদের সাথে কয়েক দিন নিজস্ব villa book করে ছুটি কাটাতে পারবেন। রয়েছে সুইমিংপুল, প্লেগ্রাউন্ড, রেস্টুরেন্ট, স্পা এমনকি ডিস্কো।

টেবিল টেনিস, ক্যারাম ইত্যাদি indoor games এরও ব্যবস্থা রয়েছে। সুইমিং পুল হোক বা গার্ডেন পুরো জায়গা জুড়ে রয়েছে নানান বসার জায়গা। যেখানে বসে snacks এর সাথে আপনি আপনার lazy time কাটাতে পারবেন।

দিনের মতই জায়গাটির রাতের সৌন্দর্য অসম্ভব সুন্দর। কলকাতার কাছাকাছি এক সুন্দর জায়গায় relax করতে চাইলে অবশ্যই ঘুরে আসুন। এখানকার স্টাফেদের ব্যবহার ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা আপনাকে মুগ্ধ করবে।

আরও একটি ইনফরমেশন দিয়ে রাখা জরুরি জায়গাটি বিভিন্ন অনুষ্ঠানের জন্য ভাড়া দেওয়া হয়।

রুমের ভাড়া এবং খাবারের খরচঃ 

এখানকার রুম ভাড়া ৩৫০০ টাকা থেকে শুরু। সাথে থাকবে কমপ্লিমেন্টারি ব্রেকফাস্ট। অন্যান্য সময়ে খাবার পছন্দ মত অর্ডার করে নিতে পারবেন। 

কলকাতা থেকে মাত্র এক দেড় ঘন্টার দূরত্বে রয়েছে এই রিসর্ট।

হাওড়া স্টেশন থেকে দূরত্ব মাত্র 25 কিলোমিটার।

ফোন নংঃ ০৩৩৬৬৫৫৫৫৫৫

 

৩। সুন্দরবন গেটওয়ে রিসর্টঃ

সুন্দরবনের দুলকি গ্রামের এই রিসর্টটি বর্তমানে বেশ চর্চিত। সুন্দরবনের মতো একটি জঙ্গলের মাঝে আধুনিক ব্যবস্থাপনার সাথে বন্যপ্রাণী ও বন্য পরিবেশের রূপ আস্বাদনের থেকে ভাল option আর কি হতে পারে।  আঞ্চলিক ধাঁচে  তৈরি কটেজ ও সুস্বাদু খাবারের সাথে আশেপাশের সবুজের সমাহার ও নদীর মনোরম দৃশ্য উপভোগ করতে পারবেন।আঞ্চলিক শিল্পকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য এখানে হ্যান্ডিক্রাফট ও হ্যান্ডলুমের প্রদর্শনের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

আশেপাশের গ্রাম, জঙ্গল ঘুরে দেখার জন্য রিসর্ট থেকে গাড়ি বুক করতে পারেন। রয়েছে রিভারক্রুজেরও ব্যবস্থা। 

রুমের ভাড়া এবং খাবারের খরচঃ 

ছোট ছোট cottage এ এসি, নন-এসি  রুমের ভাড়া ৩০০০ ও ২০০০ টাকা। তার সাথে সারাদিনের খাওয়া দাওয়ার জন্য খরচ পড়বে মাথাপিছু ৯০০ টাকা।

কিভাবে যাবেনঃ

এখানে পৌঁছাতে হলে আপনাকে যেতে হবে কাকদ্বীপ স্টেশনে। ট্রেন পাবেন শিয়ালদহ স্টেশন থেকে। এরপর ফেরিতে করে পৌঁছাতে হবে গোসাবা ফেরিঘাটে, তারপর লোকাল ট্রান্সপোর্টে পৌঁছে যান এই রিসর্টে। তবে লোকাল ট্রান্সপোর্ট সেভাবে এখানে available নয় তাই আমি সাজেস্ট করব বাইক বা নিজস্ব গাড়িতে যাওয়ার জন্য।

ফোন নংঃ ০৩৩২২২৭৭৪০০

 

৪। ভেদাম ইকো রিসর্টঃ

হুগলি জেলার সুগন্ধায় একেবারে গ্রাম্য পরিবেশের মাঝখানে এই luxurious রিসর্টটি অবস্থিত। কলকাতার এত কাছাকাছি এত সুন্দর একটি রিসর্টের এক্সপেরিয়েন্স miss করা যায় না, ভেতরে ঢুকলে মনে হয় একটি সুন্দর সাজানো গ্রাম।

মাটির ঘর, খড়ের চাল, তালগাছ, বাহারি গাছপালা, টেরাকোটার কাজ ও মাটির দেওয়ালে রং বেরংয়ের painting, এককথায় মনমুগ্ধকর। তবে মাটির ঘর বলে ভাববেন না কোনরকম আধুনিক ব্যবস্থাপনা নেই। মাটির ঘরে আলপনা দেওয়া দেওয়াল যেমন রয়েছে তেমনি রয়েছে এয়ারকন্ডিশনার। রয়েছে সুইমিংপুল, বাথটব ইত্যাদির ব্যবস্থাও।

চারিদিকে নানান গাছের বাহার তার মাঝে রয়েছে খাওয়ার জায়গা। প্রকৃতির মাঝে luxurious ভাবে দিন কাটানোর আদর্শ জায়গা। রয়েছে একটি স্পা যা আপনার relaxation কে অন্যমাত্রা দেবে। রাতে উঠোনে প্রদীপের আলো, জোনাকির ডাক মন ভরিয়ে দেয়। আর সকালে পাখির কিচিরমিচিরে যখন ঘুম ভাঙবে সে এক আলাদা রকমের রিফ্রেশমেন্ট।

রুমের ভাড়া এবং খাবারের খরচঃ

ঘরভাড়া ৩০০০ টাকা থেকে শুরু করে ৬০০০ টাকা। খাবারের খরচ আলাদা।

ফোন নংঃ +৯১৭০০৩০২৮১৬৩

 

৫। পূণ্যলক্ষী রিসর্টঃ

হুগলি নদীর তীরে ডায়মন্ড হারবারে এক রাশ সবুজের মাঝে সুন্দর একটি রিসর্ট।চারদিকে গাছপালা, ঘাসের চাদরে মোড়া মাঠ, রংবেরঙের ফুলের গাছ, পুকুর আর তার সাথে হুগলি নদীর জলরাশি, সিনিক বিউটি বোধহয় এটাকেই বলে। আর শুধু তাই নয় এর সাথে luxurious রুম, রেস্টুরেন্ট, বার, সুইমিংপুল সবই রয়েছে।

আপনারা চাইলে রিসর্ট থেকে ক্রস বুক করে গঙ্গা ভ্রমণ করতে পারবেন। আপনারা নাইট স্টে না করতে চাইলে ডে ট্রিপ ও করতে পারেন। চার্জ মোটামুটি ১৫০০ টাকা সারাদিনের খাওয়া দাওয়া সহ।

আরও একটি ইনফরমেশন দিয়ে রাখা জরুরি জায়গাটি বিভিন্ন অনুষ্ঠানের জন্য ভাড়া দেওয়া হয়।

রুমের ভাড়া এবং খাবারের খরচঃ

২৫০০ থেকে শুরু করে ৭৫০০ টাকা পর্যন্ত ট্রেনের নানান রকম রুম রয়েছে, যার প্রত্যেকটি আধুনিক ব্যবস্থাপনার সম্পন্ন। রিভার ফেসিং, ননরিভার ফেসিং, হানিমুন সুইট ইত্যাদি নানান রকমের ভ্যারিয়েশন রয়েছে। ইনহাউজ রেস্টুরেন্টের খাবার ও বেশ সুস্বাদু ও reasonable। নিজের পছন্দ মতো খাবার অর্ডার করলে রুম সার্ভিসও পেয়ে যাবেন।

ডায়মন্ড হারবার থেকে রিসর্ট টির দুরত্ব মাত্র ১ কিমি।

ফোন নংঃ +৯১৩১৭৪২৫৫১৯০

 

ভালো লাগলে পোস্টটি সকলের সাথে অবশ্যই শেয়ার করুন । আপনাদের মতামত নিচে কমেন্ট করে অবশ্যই জানান আমরা অপেক্ষায় আছি । 

নিচের ভিডিওটি দেখুন

Facebook Comments Box
BengaliEnglishHindi